বারবার প্রেমে পড়ার কারণ জানালেন বিশেষজ্ঞরা

369

লাইফস্টাইল ডেস্ক:

আমাদের প্রেমে পড়ার সঠিক কোনও বয়সই নেই। তাই যখন ইচ্ছা তখনই পড়া যেতেই পারে। জীবনের বিভিন্ন পর্যায় এসে প্রেমের বিভিন্ন সংজ্ঞার মানে বোঝা যায়। কিন্তু, সেই প্রেম কী আর জীবনভর স্থায়ী হয়!

মনোরোগ বিশেষজ্ঞরা বলছেন, আজকের এই ব্যস্ত সময়ে প্রতিনিয়তই চলে ভাঙা-গড়ার খেলা। প্রেম-বিরহের খেলায় মেতে ওঠেন অপ্রাপ্তবয়স্ক, বিবাহিত, এমনকী ডির্ভোসিরাও। আবার প্রেমে আঘাত পেয়ে আত্মহত্যার পথও বেছে নিচ্ছেন অনেকে। বারবার প্রেমে পড়া খারাপ নয়। কিন্তু, কার প্রেমে পড়ছেন? সেটাই সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, যারা চরিত্রগতভাবে আবেগপ্রবণ মানুষ। কল্পনার জগতে থাকতে ভালবাসেন। তারাই ঘন ঘন প্রেমে পড়েন। আবার টিভি সিরিয়ালে পরকীয়া প্রেম কিংবা একই ব্যক্তির একাধিক বিয়ে দেখেও অনেকে হুটহাট প্রেমে পড়ে যান। আর সেই প্রেম এতটাই দুর্বার হয়ে ওঠে, পছন্দের মানুষটির যোগ্যতা যাচাই করার অবকাশও মেলে না। ফলে স্বপ্নভঙ্গের আশঙ্কাও থাকে ষোলোআনা।

ট্রেন্ড অবশ্য বলছে, একজনের সঙ্গে জীবনভর ভালবাসার সম্পর্কে জড়িয়ে থাকাটাই একেবারেই নাপছন্দ আধুনিক তরুণ-তরুণীদের। জীবনে সবসময়ই বৈচিত্র্য খুঁজতে ভালবাসেন তারা। তাই মোবাইলের বদলের মতোই বদলে ফেলেন মুঠোয় ধরা সঙ্গীর হাতটিও।

কিন্তু, শুধুই কী বৈচিত্র্যের টানেই ঘন ঘন সঙ্গীবদল? সমীক্ষা চালিয়ে বিশেষজ্ঞরা বলছেন, কেরিয়ারের প্রতিযোগিতা যত বাড়ছে, মানুষ তত বেশি একা হয়ে পড়ছে। বাড়ছে প্রেমের করার প্রবণতাও। এক্ষেত্রে শরীরও একটি বড় ফ্যাক্টর বলে মনে করছেন কেউ কেউ। তাদের মতে, যারা শরীরের উত্তাপ পাওয়ার আশা প্রেমে ডুব দেন, চাহিদা পূরণ না হলে ফের নতুন প্রেমিক বা প্রেমিকার সন্ধান করতে দু’বার ভাবেন না তারা। আবার যারা নাগরিক জীবনের যন্ত্রণা নিয়ে গবেষণা করেন, তাদের মতে, অনেকের কাছে প্রেমটা নিছকই জীবনের স্বাদ বদলের একটি উপায়। সেইসব বেপরোয়া প্রেমিকা বা প্রেমিকার সাফ কথা, ‘প্রতিদিন বিরিয়ানি খাওয়ার পর স্বাদ বদলাতে ফেনা ভাতই অমৃত।’ তাই প্রেম ভেঙে গেলেও বিশেষ কাতর হন না তারা। সোজা কথায়, ব্যস্ত জীবনে বদলে যাচ্ছে প্রেমও।